দেশের অর্থনীতিতে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব বর্ণনা কর

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - দৈনিক শিক্ষা ব্লগর পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে দেশের অর্থনীতিতে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব বর্ণনা কর নিয়ে আলোচনা করব।

দেশের অর্থনীতিতে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব বর্ণনা কর

ভূমিকা

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে খনিজ সম্পদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোর উন্নয়নের ইতিহাস আলোচনা থেকে জানা যায় যে, ঐ সকল দেশের উন্নয়নে খনিজ সম্পদের ভূমিকাই সর্বাধিক। বাংলাদেশে প্রাপ্ত কয়লা, আকরিক লোহা, প্রাকৃতিক গ্যাস, পেট্রোলিয়াম প্রভৃতি পদার্থসমূহ দেশের অর্থনৈতিক উন্নতিতে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

নিম্নে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব আলোচনা করা হলো:

কৃষির উন্নয়ন

বাংলাদেশের কৃষি উন্নয়নে খনিজ সম্পদের ভূমিকা অনেক বেশি। কৃষিকার্যে ব্যবহৃত সব ধরনের যন্ত্রপাতি তৈরি করতে লোহা, খনিজ তেল, কয়লা, প্রাকৃতিক গ্যাস প্রভৃতি খনিজ সম্পদের একান্ত প্রয়োজন। এছাড়া কৃষি যন্ত্রপাতি চালাতে গ্যাস, খনিজ তেল প্রভৃতি ব্যবহৃত হয়।

শিল্পোন্নয়ন

খনিজ সম্পদ শিল্পের ব্যবহারযোগ্য কাঁচামাল যোগান দিয়ে শিল্পোন্নয়নের গতি ত্বরান্বিত করে। চুনাপাথর, গন্ধক, সিলিকা বালি প্রভৃতি রাসায়নিক শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয়। আবার সিমেন্ট, সাবান ও কাগজ শিল্পে চুনাপাথর এবং মৃৎ শিল্পে সিলিকা বালি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

গৃহস্থালির জ্বালানি হিসেবে

বাংলাদেশে প্রাপ্ত প্রাকৃতিক গ্যাস গৃহস্থালির জ্বালানি হিসেবেও ব্যবহৃত হচ্ছে। এর ফলে গৃহস্থালির জ্বালানি হিসেবে কয়লা ও কেরোসিন তেল আমদানি করতে যে প্রচুর পরিমাণ কষ্টার্জিত বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় হতো তা বহুলাংশে হ্রাস পেয়েছে।

কর্মসংস্থান

খনিজ সম্পদ আহরণ ও ব্যবহারের জন্য সাধারণত প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শ্রমিকের প্রয়োজন হয়। অধিক জনসংখ্যা অধ্যুষিত বাংলাদেশে প্রাপ্ত খনিজ সম্পদ নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নতিতে, বিশেষভাবে সহায়তা করছে।

বৈদেশিক মুদ্রার অপচয় হ্রাস

দেশ খনিজ সম্পদে সমৃদ্ধ হলে বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করে শিল্পে ও জ্বালানি হিসেবে ব্যবহারের জন্য খনিজ সম্পদ আমদানি করতে হয় না। বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে প্রাকৃতিক গ্যাস থাকায় জ্বালানি সম্পদ আমদানি হ্রাস পেয়েছে। এর ফলে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা বেঁচে গেছে।

রপ্তানি বৃদ্ধি

যে দেশ খনিজ সম্পদে যত বেশি সমৃদ্ধ, সে দেশ অর্থনৈতিকভাবে তত বেশি সমৃদ্ধি লাভে সমর্থ হয়। কারণ উদ্বৃত্ত খনিজ সম্পদ রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা যায়। অর্থাৎ খনিজ সম্পদই অর্থনৈতিক উন্নয়নের ভিত্তি, তাই বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব অনেক বেশি।

পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন

রাস্তাঘাট, পুল, রেলপথ নির্মাণের জন্য নুড়িপাথর ও কঠিন শিলার প্রয়োজন, আবার রেলগাড়ি, মোটরগাড়ি, লঞ্চ, স্টিমার প্রভৃতি তৈরি ও চালাতে খনিজ সম্পদের প্রয়োজন হয়। তাই দেশের পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন তথা অর্থনৈতিক উন্নতিতে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব অপরিসীম।

নির্মাণ শিল্পের উন্নতি

বাংলাদেশে প্রাপ্ত খনিজের মধ্যে নুড়িপাথর, কঠিন শিলা ও পাথর দ্বারা সিমেন্ট, গৃহনির্মাণ ও যানবাহন নির্মাণ শিল্পের উন্নতি লাভ ঘটেছে। শিল্পের উন্নতি দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির সহায়ক।

সরকারের আয় বৃদ্ধি

বাংলাদেশে প্রাপ্ত বিভিন্ন প্রকার খনিজ বিশেষ করে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহ করে বাংলাদেশ সরকার প্রতি বছর প্রচুর পরিমাণ অর্থ আয় করে তা দেশের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে ব্যয় করছে।

উপসংহার

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব সম্পর্কিত উপরিউক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে স্পষ্টই বলা যায় যে, বাংলাদেশে প্রাপ্ত খনিজ সম্পদসমূহ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

আপনার আসলেই দৈনিক শিক্ষা ব্লগর একজন মূল্যবান পাঠক। দেশের অর্থনীতিতে খনিজ সম্পদের গুরুত্ব বর্ণনা কর এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url