কৃষিকাজ কী? কৃষিকাজের বৈশিষ্ট্যগুলো আলোচনা কর

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - দৈনিক শিক্ষা ব্লগর পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে কৃষিকাজ কী? কৃষিকাজের বৈশিষ্ট্যগুলো আলোচনা কর নিয়ে আলোচনা করব।

কৃষিকাজ কী? কৃষিকাজের বৈশিষ্ট্যগুলো আলোচনা কর

ভূমিকা: কৃষিকাজ মানুষের প্রাচীনতম পেশাগুলোর অন্যতম। কৃষি মানুষের বৈষয়িক জীবনের ভিত্তি। প্রাচীন কালে কৃষি বলতে কেবল ভূমি হতে উৎপাদনকে বুঝাত। সাধারণত ভূমি কর্ষণের কৌশলকে কৃষিকাজ বলা হয়।

কৃষি কাজ: Agriculture কৃষি শব্দটি 'Agur' ও 'kultura' নামক দুটি ল্যাটিন শব্দ থেকে এসেছে। এদের অর্থ হচ্ছে যথাক্রমে 'মৃত্তিকা' (Soil) ও 'সংরক্ষণ' (Conservation)। তাই আদি যুগে কৃষি বলতে মৃত্তিকা থেকে ফসল উৎপাদনকে বুঝাত। পরবর্তীকালে পশুপালন, ফলমূল উৎপাদন, মৃত্তিকা সংরক্ষণও কৃষির আওতাভুক্ত হয়।

প্রামাণ্য সংজ্ঞাঃ
  • অধ্যাপক জিম্মারম্যান বলেছেন, "স্থায়ীভাবে বসবাসকারী মানুষ যখন উদ্ভিদ ও প্রাণিজগতের স্বাভাবিক জন্ম ও বৃদ্ধির প্রক্রিয়ার সুযোগ নিয়ে আপন চাহিদা মিটানোর জন্য উদ্ভিদ ও প্রাণিজ দ্রব্য উৎপন্ন করে তখন মানুষের এ প্রচেষ্টাকে কৃষিকাজ বলে।
  • এমারসন বলেন, "সৃষ্টির আদি মানুষ ছিলেন প্রথম কৃষক এবং সকল ঐতিহাসিক সভ্যতা নির্ভর করে ভূমি থাকা ও তার ব্যবহারের উপর।" সুতরাং কৃষিকাজ বলতে আমরা বুঝি, "ভূমি কর্ষণ, বীজ বপন, সার ও কীটনাশক প্রয়োগ, পানি সেচ, ফসল সংগ্রহ ও সংরক্ষণ, পশুপালন, মৎস্য চাষ, বনভূমির আবাদ, মৌমাছির চাষ, তুঁত চাষ ও রেশম সংগ্রহ ইত্যাদি জীবিকার্জনের জন্য মানুষের যাবতীয় কর্মপ্রচেষ্টা।

কৃষিকাজের বৈশিষ্ট্য বা স্বরূপঃ প্রাথমিক পেশা হিসেবে কৃষিকাজের কতকগুলো বৈশিষ্ট্য আছে। কৃষিকাজের এ বৈশিষ্ট্যগুলো কৃষিকে শিল্প থেকে পৃথক করেছে। কৃষিকাজের বৈশিষ্ট্যগুলো নিম্নরূপঃ
  1. প্রাথমিক শিল্পঃ কৃষি একটি প্রাথমিক শিল্প। এ শিল্পের মাধ্যমে ভূমি থেকে বিভিন্ন কৃষিজ ফসল উৎপাদন করা হয়। কৃষিকাজ একটি প্রাথমিক পেশা।
  2. আদিম পেশাঃ কৃষি মানুষের আদিম পেশা। এখনও পৃথিবীর বেশির ভাগ লোক কৃষিকাজে নিয়োজিত থেকে জীবিকার্জন করে । সুতরাং প্রাচীন পেশা হিসেবে। এর বিশেষ বৈশিষ্ট্য রয়েছে।
  3. প্রকৃতির উপর নির্ভরশীলতাঃ কৃষির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো প্রকৃতির উপর এর নির্ভরশীলতা। বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান যেমন- মৃত্তিকা, আবহাওয়া, জলবায়ু এর উপর নির্ভরশীল।
  4. কৃষিকাজে মানুষের ভূমিকাঃ কৃষিকাজে মানুষের ভূমিকা গৌণ এবং প্রকৃতির ভূমিকা মুখ্য। উদ্ভিদ ও প্রাণীর জন্ম ও বৃদ্ধি প্রাকৃতিক নিয়মে সংগঠিত হয়। মানুষ তার প্রচেষ্টা দ্বারা প্রাকৃতিক নিয়মের কিছুটা পরিবর্তন আনতে পারে।
  5. উৎপাদনে অনিশ্চয়তা: প্রকৃতির উপর নির্ভরশীলতার জন্য কৃষি উৎপাদনে অনিশ্চয়তা বিরাজ করে। অনিশ্চিত উৎপাদনও কৃষির একটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য।
  6. মৌসুমি উৎপাদন: বিভিন্ন ফসল বিভিন্ন সময়ে বা মৌসুমে উৎপাদন হয়। তাই কৃষিকাজ অন্যান্য পেশা হতে ভিন্ন বৈশিষ্ট্যের অধিকারী।
  7. ক্রমহ্রাসমান উৎপাদন বিধিঃ কৃষিক্ষেত্রে ক্রমহ্রাসমান উৎপাদন বিধি প্রযোজ্য। যে হারে উৎপাদনে ব্যয় করা হয় উৎপাদন তার
  8. চেয়ে কম হারে বৃদ্ধি পাবে। কৃষিজাত পণ্যের চাহিদাঃ কৃষিপণ্যের হ্রাস-বৃদ্ধির সাথে চাহিদার হ্রাস-বৃদ্ধি কম হারে হয়।
  9. চাষ পদ্ধতির বিভিন্নতা : পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন ধরনের চাষ বা পদ্ধতি বিদ্যমান। পৃথিবীর নানা অঞ্চলে সনাতন পদ্ধতি, আধুনিক পদ্ধতি, জীবনভিত্তিক, প্রগাঢ় ও ব্যাপক ভিত্তিক চাষ পদ্ধতি বিরাজ করছে।
  10. যোগানের অস্থিতিস্থাপকতা: কৃষিকাজের যোগান ইচ্ছা করলেও তাড়াতাড়ি বৃদ্ধি করা সম্ভব হয় না। কৃষি পণ্যের দাম হঠাৎ বৃদ্ধি পেলেও যোগান সাথে সাথে বৃদ্ধি করা সম্ভব হয় না।
  11. দীর্ঘ উৎপাদন কাজ: বীজ বপন বা উৎপাদন শুরু থেকে ফসল ঘরে তোলার মধ্যে সময়কাল (Gestation period) বেশি। ফসল ঘরে আসতে কমপক্ষে তিনমাস সময় লাগে, ফল উৎপাদন, পশুপালন এ সময় আরও বেশি লাগে।
  12. কৃষিজাত পণ্য পচনশীল: অধিকাংশ পণ্য পচনশীল এবং সংরক্ষণ ব্যয় বেশি। তাই এদের দ্রুত বাজারজাতকরণ করতে হয়।
  13. কম বিনিয়োগের আয়: কৃষিকাজে বিনিয়োগকৃত অর্থের আয় পেতে সময় লাগে এবং আয়ের পরিমাপক কম।
  14.  ব্যাপক অঞ্চলঃ ব্যাপক অঞ্চলব্যাপী চাষাবাদ করাও কৃষির একটি বৈশিষ্ট্য।
  15. কৃষি উৎপাদনে ভূমি প্রাধান্য: কৃষিকাজে ভূমির প্রাধান্য রয়েছে। ব্যাপক এলাকা জুড়ে কৃষিকাজ সংঘটিত হয়।
  16. ব্যাপকতাঃ বিশ্বব্যাপী কৃষির ব্যাপকতা বা প্রসারও উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য। পৃথিবীর প্রায় সর্বত্রই কৃষির ব্যাপকতা বর্তমান।
  17. ধীর বিনিয়োগ ফেরঃ কৃষিতে বিনিয়োগকৃত অর্থ ফেরত প্রাপ্তি অত্যন্ত আস্তে আস্তে হয় এবং এটি হতে প্রাপ্ত আয়ের পরিমাণও তুলনামূলকভাবে কম।
  18. উৎপাদনের বৈচিত্র্যতা: উৎপাদনের বৈচিত্র্যতাও কৃষির একটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য। কারণ একই ভূমিতে বিভিন্ন ঋতুতে ভিন্ন ভিন্ন শস্য উৎপাদিত হয়।
  19. স্বল্প উৎপাদনঃ স্বল্প উৎপাদন কৃষির একটি অন্যতম বৈশিষ্ট্য। অন্যান্য শিল্প অপেক্ষা কৃষি ক্ষেত্রে উৎপাদনের পরিমাণ অপেক্ষাকৃত কম।

আরো পড়ুনঃ মৌসুমি অঞ্চলের অধিবাসীদের অর্থনৈতিক কার্যাবলি কী?

উপসংহারঃ উপরিউক্ত আলোচনা থেকে থেকে জানা যায় যে, বিশ্বের কৃষিতে এক অনুন্নত চিত্র ফুটে উঠেছে। কৃষির আলোচ্য বৈশিষ্ট্যগুলোর প্রতি লক্ষ রেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করলে কৃষির উন্নয়ন সম্ভব।

আপনার আসলেই দৈনিক শিক্ষা ব্লগর একজন মূল্যবান পাঠক। কৃষিকাজ কী? কৃষিকাজের বৈশিষ্ট্যগুলো আলোচনা কর এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url